সুন্দর আচরণ করে মানুষের ভালোবাসা অর্জন করতে হবে :শিক্ষামন্ত্রী

আনোয়ারুল হক॥

চাঁদপুর জেলার হাইমচর, কচুয়া ও ফরিদগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচনের নবনির্বাচিত ২৯ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যাদের শপথ অনুষ্ঠান হয়েছে গতকাল বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় ।

শপথ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে অনলাইন প্লাটফর্ম এ যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন ড.মহীউদ্দিন খান আলমগীর এমপি ও মুহম্মদ শফিকুর রহমান এমপি। নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের শপথ বাক্য পাঠ করান জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। শপথ গ্রহণ করার পর নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বলেন, জনপ্রতিনিধিদের কাছে মানুষের আকাঙ্খা চাহিদা অনেক। সবকিছু পূরণ করা সম্ভব না হলেও সহমর্মিতা দিয়ে সুন্দর আচরণ করে তাদের ভালোবাসার জায়গাটা ধরে রাখতে হবে। যারা যে এলাকার ভোটে নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পেয়েছেন সেই এলাকার প্রতিটি মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবেন এটা অবশ্যই আমাদের কাম্য আমিও একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার নির্বাচনী এলাকা থেকে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তাদের কাছে আমি অঙ্গীকার করছি যে কাজে আমার যতটুক সহযোগিতা করা দরকার ইনশাল্লাহ আপনারা পাবেন।

মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ ধরেই তার সুযোগ্য কন্যা দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। ইনশাল্লাহ আগামী দিনেও সকল প্রতিবন্ধকতা ষড়যন্ত্র বাধা অতিক্রম করে বাংলাদেশ তার অভীষ্ট লক্ষ্যে। পৌঁছাবে।

তিনি বলেন, ১৯৯৬- থেকে ২০০১ এবং ২০০৮ থেকে পরপর তিনবার শেখ হাসিনা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। গত ১৮ বছরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে অনেক দূর নিয়ে গেছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাওয়ায় দেখে সারা বিশ্বের কাছে এ এক বিস্ময় ঘটনা। একের পর এক সাফল্য অর্জনে আমরা শুধু গর্ব অনুভবই করি না প্রতিটা মুহূর্ত আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করে। বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ, আগে বিদ্যুৎ ছিল ১৬’শ মেগাওয়াট। সেখান থেকে শেখ হাসিনা প্রথমবার ক্ষমতায় এসে পাঁচ বছরের মধ্যে সাড়ে চার হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি করেছেন। বড় বড় মেগা প্রকল্পের কাজগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের পথে। এরকম করে প্রতিটি ক্ষেত্রে নিরক্ষরতা দূরীকরণ সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি। দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে তার যে অভূতপূর্ব উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছিল তার এই পথ ধরে বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে।

আয়োজিত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের সভাপতিত্বে ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সহকারী পরিচালক আখতার জাহান সাথীর পরিচালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ,ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান, কচুয়া পৌরসভার মেয়র নাজমুল আলম স্বপন, হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটওয়ারী প্রমুখ।

নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মধ্যে অনুভূতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন ফরিদগঞ্জ রুপসা উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এসএম কাউছার উল আলম, কচুয়া গোহট উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ কবির হোসেন ও হাইমচর আলগী দুর্গাপুর উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আতিকুর রহমান পাটওয়ারী প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক দাউদ হোসেন চৌধুরী, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: ইউসুফ গাজী, সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটোয়ারী, অ্যাডঃ মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন, পিপি এডভোকেট রনজিত রায় চৌধুরী , হাইমচর ইউএনও চাই থোয়াইহলা চৌধুরীসহ গণমাধ্যম প্রতিনিধি, প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাগণ এবং রাজনৈতিক দলের অন্য নেতৃবৃন্দ।

ডাঃ দীপু মনি আরো বলেন, জনপ্রতিনিধি আমরা যারা আছি, আমারা জনসেবা, দেশ সেবা করার মানুষ। আর প্রশাসনে যারা আছে তাদের দায়িত্ব দেশের সেবা করা। সকলে মিলে আমরা যেন আমাদের দায়িত্বের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকি। দায়িত্ব যেভাবে পালন করার কথা আমরা যেন সেভাবে করি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীর এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শুধু শহর নয়, গ্রামের অবকাঠামো অনেক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। গ্রামপর্যায়ে দরিদ্র মানুষের কল্যাণে প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালী করুন করেছেন। যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা মানুষের কল্যাণ এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে।

মুহম্মদ শফিকুর রহমান এমপি বলেন, শেখ হাসিনা চমক লাগানো উন্নয়ন প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন।আমার নির্বাচনী এলাকা ফরিদগঞ্জে বিগত পঞ্চাশ বছরে যেই কাজ হয়নি তার চেয়ে অধিক উন্নয়ন কাজ হয়েছে। ফরিদগঞ্জবাসী ফায়ার স্টেশন পেয়েছে, কাঁচা রাস্তা পাকা করন হচ্ছে। নতুন ব্রিজ নির্মাণ কাজ দ্রুত শুরু হবে।

তিনি বলেন, উন্নয়নের ভিত্তি মূল হচ্ছে তৃণমূল। সেখান থেকেই আমাদেরকে আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে।

শপথ বাক্য শেষে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ ও পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের উদ্দেশ্যে দিক নির্দেশনামূলক গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন।

এছাড়াও উপজেলা কমপ্লেক্স ভবনে নির্বাচিত সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য ও সাধারণ সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান স্ব স্ব উপজেলার নির্বাহী অফিসারগণ।

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের এক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে নবনির্বাচিত শপথ নেওয়া চেয়ারম্যানগণ হলেন- হাইমচর উপজেলার ৪ জন, নীলকমল ইউনিয়নে সউদ আল নাছের,আলগী দুর্গাপুর উত্তর ইউনিয়নে মোঃ আতিকুর রহমান পাটওয়ারী, আলগী দুর্গাপুর দক্ষিণ ইউনিয়নে আঃ জলিল মাস্টার এবং হাইমচর ইউনিয়নে সরকার আব্দুল জুলহাস।

ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১৩ জন- বালিথুবা পুর্ব ইউনিয়নে মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ ও পশ্চিম ইউনিয়নে মোঃ জসিম উদ্দিন স্বপন মিয়া, সুবিদপুর পূর্ব ইউনিয়নে মোঃ বেলায়েত হোসেন ও পশ্চিম ইউনিয়নে মোঃ মহসীন হোসেন ,গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নে মোঃ শাহজাহান ও পশ্চিম ইউনিয়নে মোঃ বুলবুল আহমেদ, পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নে আবু তাহের পাটওয়ারী, গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নে মোহাম্মদ শাহআলম ও দক্ষিণ ইউনিয়নে মোঃ আলাউদ্দিন,রুপসা উত্তর ইউনিয়নে এসএম কাউছার উল আলম ও দক্ষিণ ইউনিয়নে মোঃ শরীফ হোসেন, চরদুখিয়া পূর্ব ইউনিয়নে মাহমুদুল হাসান ও পশ্চিম ইউনিয়নে মোহাম্মদ শাহজাহান।

কচুয়া উপজেলার ১২ জনঃ সাচার ইউনিয়নে মোঃ মনির হোসেন,পাথৈর ইউনিয়নে মোঃ আক্কাস আলী মোল্লা,বিতারা ইউনিয়নে মোঃ ইসহাক সিকদার,পালাখাল মডেল মোম হাবিবুর রহমান,সহদেবপুর পশ্চিম ইউনিয়নে আলমগীর হোসেন,কচুয়া উত্তর ইউনিয়নে আখতার হোসাইন,কচুয়া দক্ষিণ ইউনিয়নে খন্দকার আরিফুজ্জামান,কাদলা ইউনিয়নেমোহাম্মদ নূরে ই আলম,কড়ইয়া ইউনিয়নে মোঃ আঃ ছালাম,গোহট উত্তর ইউনিয়নে মোঃ কবির হোসেন ও দক্ষিণ ইউনিয়নে মোঃ আমির হোসেনএবং আশ্রাফপুর ইউনিয়নে রেজাউল মাওলা হেলাল।

শেয়ার করুন: