সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে মানুষের মধ্যে মানবিক মূল্যবোধের প্রসার হবে : পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

মেঘনা বার্তা ডেস্ক ॥

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেছেন, “মহান সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টির প্রত্যাশায় আমরা মুসলমানরা এক মাস রোজা পালন করি, যার মূল দর্শন হলো আত্মসমর্পণ। ধৈর্য, সংযম, আত্মনিয়ন্ত্রণ, আনুগত্য এবং আত্মশুদ্ধির শিক্ষায় দীক্ষিত হয়ে পারস্পরিক শ্রদ্ধায় সৌহার্দ্য, শান্তি, সমৃদ্ধি এবং সহিষ্ণুতা বৃদ্ধি পাবে। ফলে সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে মানুষের মধ্যে মানবিক মূল্যবোধের প্রসার হবে”। ২২ এপ্রিল শুক্রবার চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি দরবার শরীফে ইফতার মাহফিলে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার দেশকে অল্প সময়ে যে উন্নয়নের মহাসড়কে নিয়ে গেছে অতীতে কেউ এভাবে পারেনি। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ পরিচালিত হচ্ছে বিধায় এটা সম্ভব হয়েছে।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন,বঙ্গবন্ধু কখনও ইসলামকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করেননি। তারই যোগ্য উত্তরসূরি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের উন্নয়ন করে মুসলিম জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় কর্মকাণ্ডকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উন্নতি করেছেন। ইসলাম ধর্মের প্রকৃত জ্ঞান অর্জনের জন্য মুসলিম সম্প্রদায়কে উৎসাহী করার কৃতিত্ব সম্পূর্ণ তার।

ফরাজীকান্দি দরবার শরীফের পীর আল্লামা শায়খ মাসউদ আহমেদ এর সভাপতিত্বে ও ফরাজিকান্দি ফাতেমা-তুজ-জোহরা মসজিদের খতিব মাওলানা জাকারিয়া শিকদার এর সঞ্চালনায় আলোচনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল এমপি, মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা গাজী শরিফুল হাসান। বক্তব্য রাখেন, এএসপি মতলব সার্কেল ইয়াছির আরাফাত, মেঘনা ধনাগোদা পানি ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক সরকার মোঃ আলাউদ্দিন,উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও গজরা ইউপি চেয়ারম্যান শহীদ উল্লাহ প্রধান, ফরাজীকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার রেজাউল করিম প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মাদ শাহজাহান কামাল,স্থানীয় সংসদ সদস্যের একান্ত সচিব এডভোকেট লিয়াকত আলী সুমন, চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রিয়াদুল হাসান,নাউরী আহম্মাদীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম তাজুল ইসলাম, নাউরী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেওয়ান আবুল খায়ের, গজরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদসহ বিভিন্ন এলাকার রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সামাজিক গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ, শিক্ষক, বিভিন্ন মসজিদের ইমামসহ অনন্যান্য লোকজন।

সভায় আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক ফাউন্ডেশন এখন সরকারি অর্থে পরিচালিত অন্যতম একটি বড় সংস্থা হিসেবে দেশ-বিদেশে নন্দিত। এ প্রতিষ্ঠান থেকে এ পর্যন্ত পবিত্র কোরআনের বাংলা তরজমা, তাফসির, হাদিস গ্রন্থের অনুবাদ, রাসূল (সা.)-এর জীবন ও কর্মের ওপর রচিত ও অনূদিত গ্রন্থ, ইসলামের ইতিহাস, ইসলামী আইন ও দর্শন, ইসলামী অর্থনীতি, সমাজনীতি, সাহাবি ও মনীষীদের জীবনী ইত্যাদি নানা বিষয়ে সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠান ঢাকার প্রধান কার্যালয়সহ সারা দেশের ৬৪টি জেলা কার্যালয়, আর্ত-মানবতার সেবায় ২৮টি ইসলামিক মিশন, ৭টি ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমির মাধ্যমে নানামুখী কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে।
ইফতারের আগে দেশের অব্যাহত শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন ফরাজীকান্দি দরবার এর পীর আল্লামা শায়খ মাসউদ আহমেদ বোরহানী।

শেয়ার করুন: