হাইমচরে মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম

মাহমুদুল মতিন ॥

হাইমচর উপজেলার চরভৈরবীর পাড়া বগুলা গ্রামে স্থানীয় সুলতান ঢালীর মানসিক ভারসাম্যহীন পুত্র আবদুল্লাহ ঢালী(৩৫) কে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মেরে পা ভেঙে দেয়াসহ রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে ন্যায় বিচার চায় ভুক্তভোগী পরিবার।

ভুক্তভোগী আব্দুল্লাহ এর পিতা সুলতান ঢালী জানান গত ২৩ জুন রাতে স্থানীয় মনির সরকার আব্দুল্লাহ কে ডেকে নিয়ে মনির ও শরীফ আখন্দের নেতৃত্বে ৪/৫ জন্য মিলে মারপিট করে দু- পা ভেঙে রক্তাক্ত করে ও জখম করে, মারপিটের ফলে আব্দুল্লাহর দু পা কয়েক টুকরো হয়েগেছে,খবর পেয়ে হাইমচর থানা পুলিশ আব্দুল্লাহকে ঘটনাস্থল হতে উদ্ধার করে হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে, অবস্থা অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ কে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার করে, আব্দুল্লাহ বর্তমানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে, ঘটনার পর থেকে হামলাকারীদের পক্ষ নিয়ে স্থানীয় একটি মহল ঘটনা ভিন্নখাতে নেয়ার অপচেষ্টায় অপপ্রচার সহ তদবির চালাচ্ছে।

এ ঘটনায় আব্দুল্লার পরিবারের পক্ষ হতে হাইমচর থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগসূত্রে জানাযায় ২৩ জুন বৃহস্পতিবার রাতে হাইমচর উপজেলা চরভৈরবী ইউনিয়ন মনির সরকার, শরীফ আখন্দ,সবুজ আখন্দ,রেজাউল সর্দার,শাহআলম হাওলাদার,আল আমিন সর্দার, নাঈম আখন,মহিউদ্দিন শনি,অলি মিয়া হাওলাদার ও সোহাগ মাল সহ অজ্ঞাত কয়েকজন তাকে মেরে পা ভেঙে দেয়।

আব্দুল্লার বাবা আরো বলেন চরভৈরবীর একটি মহলের ইন্দনে বিবাদিগন আমার ছেলের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারসহ আমাকে ও আমার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেরকে প্রাণনাশের হুমকি ও বিভিন্ন ধরনের ভয়- ভীতি ও হুমকি – ধুমকি দিচ্ছে। যাতে করে আমরা বিবাদীদের বিরুদ্ধে কোন মামলা,মোকদ্দমা করতে না পারি। আমি ও আমার পরিবারের সকল সদস্যগন নিরাপত্তাহীনাতায় ভূগিতেছি এবং ঐ মহলটি আমার পরিবার নিয়ে ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে পুলিশ প্রশাসনের কাছে অপরাধীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করছি।

শেয়ার করুন: