হাজীগঞ্জে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক :

পানিতে ডুবে পৃথক ঘটনায় হাজীগঞ্জে সুমাইয়া আক্তার (৭) ও মোহাম্মদ হোসেন (২০ মাস) নামের দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। রোববার দুপুরে উপজেলার ৫নং সদর ইউনিয়নের সুবিদপুর গ্রামের সুবিদপুর উত্তরপাড়া রফিকুল ইসলাম মজুদারের বাড়ির পাশে পুকুরে পানিতে ডুবে সুমাইয়া আক্তার মারা যায়। সুমাইয়া আক্তার সিলেট জেলার মোহাম্মদ রুমনের মেয়ে। প্রায় তিনবছর পূর্বে তার বাবা ও মায়ের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ হওয়ার পর শিশুটি নানা বাড়ি সুবিদপুর গ্রামের জালাল উদ্দিন বেপারী বাড়িতে বসবাস করতো। অপর দিকে একইদিন বিকেলে হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন ৮নং ওয়ার্ড টোরাগড় গ্রামের সুলতান সর্দার বাড়ির মোঃ শরিফ হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ হোসেন পুকুরের পানিতে ডুবে মারা যায়।

জানা যায়, এদিন দুপুরে সুবিদপুর উত্তরপাড়া মজুমদার বাড়ির পাশের পুকুরে সমবয়সী তানজিনা, জান্নাত ও সিয়ামসহ অন্যান্য ছেলে-মেয়েদের সাথে শাপলা তুলতে যায় সুমাইয়া। এরপর শিশুটি অন্য শিশুদের সাথে পুকুরের পানিতে ডুবে গেলে স্থানীয়রা সুমাইয়াকে উদ্ধারের চেষ্টা করে। কিন্তু তাকে খুঁজে না পেয়ে জাতীয় জরুরি নম্বর ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে হাজীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।

এর আগে হাজীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা চাঁদপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিকে ফোন দেন। খবর পেয়ে নৌ-ফায়ার সার্ভিস ইউনিটের ডুবুরি দলের সদস্য রাজিব হোসেন ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ২০ মিনিটের চেষ্টায় শিশু সুমাইয়াকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে।

এরপরেই খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ থানা পুলিশ নিহতের মরদেহ থানা হেফাজতে নিয়ে আসে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় বলে স্থানীয় ইউপি সদস্য সূত্রে জানা গেছে।

অপরদিকে একইদিন বিকেলে হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন টোরাগড় গ্রামের সুলতান সর্দার বাড়ির শিশু মোহাম্মদ হোসেন পরিবারের সকলের অগোচরে নিজ বাড়ির পুকুরের পানিতে ডুবে যায়। শিশুটি খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। এ সময় পরিবারের লোকজনের খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে নিজ বাড়ির পুকুরে থেকে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎস শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

শিশুটির বাড়ির সম্পর্কে চাচা রাজন সর্দার জানান, খবর পেয়ে হাজীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ ইউনুস শিশুটির মরদেহ পুলিশি হেফাজতে নেয়। পরে নিহতের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় এবং লিখিত আবেদনের ভিত্তিতে পুলিশ ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে।

অপর শিশু সুমাইয়া আক্তারের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে হাজীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আবু মোঃ সাজেদুল কবির যোয়ার্দার জানান, আমাদের সহযোগিতায় চাঁদপুর নৌ-ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি শিশু সুমাইয়াকে মৃত অবস্থায় পুকুর থেকে উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ গোলাম মাওলা জানান, শিশু মোহাম্মদ হোসেনকে আমরা মৃত অবস্থায় পেয়েছি।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.