হাজীগঞ্জে ব্যবসায়ীদের দাবি অগ্নিকান্ডে ১০ কোটি টাকার ক্ষতি

হাজীগঞ্জ প্রতিবেদক:

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বাজার টিন পট্টিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অর্ধশতাধিক দোকানের প্রায় ১০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা দাবি করছে।

২ আগষ্স্ট রোববার দিবাগত রাত দেড়টায় একটি বাঁশ শিল্পের দোকান থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়।

প্রত্যক্ষদশীরা বলেন, চারপাশে বিল্ডিং থাকায় পুরো বাজার রক্ষা পেলেও রক্ষা পায়নি কাঠের তৈরি দোকান ঘরসহ প্রায় অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিসের দমকলকর্মীদের পাশাপাশি শতাধিক তরুণ আপ্রাণ চেষ্টা করেছে।

পুড়ে যাওয়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য প্রসিদ্ধ টিন ব্যবসায়িরা, খোরশেদ, কারী, আবুল বাশার, ফাতেমা এন্টারপ্রাইজ, অনিল সাহা, ওষুধ ফার্মেসী ২ টি, মান্নান, তফুসহ প্রায় অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

চাঁদপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক ফরিদ আহমেদ মনির বলেন, ফায়ার সার্ভিসের চারটি স্টেশনের পাঁচটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তি, কচুয়া, চাঁদপুর সদর উপজেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে। প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে আগুন নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় বাসিন্দারা সহযোগিতা করেন।

হাজিগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আশফাকুল আলম চৌধুরী বলেন, ৩৪ থেকে প্রায় ৫০ টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এখানে বেশিরভাগ দোকান গুলো বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন পণ্যের ডিলার, ফার্মেসী, বাঁশ শিল্প, মুদি দোকান ও টিনের দোকান ছিল।

হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হায়দার পারভেজ সুজন বলেন, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করা যায়নি। তবে কয়েক কোটি টাকা হবে বলে জানিয়েছেন। আহত ৫/৬ জনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাদের চিকিৎসা ব্যয়ভার গ্রহণ করবেন ব্যবসায়ী সমিতি।

অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজীগঞ্জ পৌর মেয়র আ.স.ম. মাহবুবুব-উল আলম লিপন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ুয়া পরিদর্শন করে বলেন, অগ্নিকান্ডে পুড়ে যাওয়া দোকান মালিকের তালিকা তৈরি করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করা হবে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *