হাজীগঞ্জ উটতলী খেয়াঘাট সেতুনির্মাণ কাজের নৈশ্য প্রহরীর রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

হাজীগঞ্জে বহুলপ্রতিক্ষিত উটতলী খেয়াঘাট সেতু নির্মাণ কাজে নিয়োজিত নৈশ্যপ্রহরী হারুনুর রশিদ (৫০) এর রহস্যজনক মৃতুর খবর পাওয়া যায়। ৩ সেপ্টেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে দেখে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত নৈশ্যপ্রহরী হারুনুর রশিদ হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ড টোরাগড় মিস্ত্রি বাড়ীর মৃত আলী আহম্মদের ছেলে। তিন মেয়ে, এক ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে অত্যান্ত দারিদ্র্যতার মধ্যে পরিবারটি পার করে আসছে বলে জানান স্থানীয় উথান কাজী।

নিহতের পরিবারের স্বজনদের দাবি, হারুনুর রশিদ উটতলী খেয়াঘাটের সেতুর নতুন মালামালের জন্য গত সপ্তাহে নৈশ্যপ্রহরীর কাজটি নেয়। শনিবার বিকাল বেলায় সে খাওয়া শেষে বাড়ী থেকে বের হয়ে ঘাটে যায়। তার পর শুনি মৃত্যুর সংবাদ। আমরা তার মাথায় আঘাতের চিহৃ দেখতে পাই, কিন্তু সেতু ঠিকাদারের কর্মকর্তা বলছেন সে ঘুরে পড়ে মাটিতে পড়ার সময় শার্টারের আঘাত পেয়েছেন।

উটতলী খেয়াঘাটে নাম প্রকাশে অনিশ্চুক জৈনেক ব্যক্তি বলেন, কিছুদিন আগে সেতুর কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রের ২টা বেটারি চুরি হইয়েছে, তারপর প্রায় ৩০ লিটার তেল চুরি হইছে। চুরি হওয়ার ঘটনা নিয়ে সেতু কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তরা রহস্যভেদে রয়েছে।

উটতলী খেয়াঘাটের নির্মানাধীন সেতুর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার আউয়াল হোসেন বলেন, সে হঠাৎকরে ষ্ট্রোক করে মারা যায়। হেলে পড়ার সময় মাথায় শার্টারের আঘাত লেগেছে। এখানে অন্যকোন ঘটনা ঘটেনি।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জোবাইর সৈয়দ বলেন, আমরা হাসপাতাল থেকে লাশ থানায় নিয়ে এসেছি। পরিবার থেকে কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। তার পরেও রবিবার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুরের পাঠানো হবে।

শেয়ার করুন: