হান্নান নিহতের ঘটনায় দু’ শ্যালককে আদালতে সোপর্দ : যশোরে তদন্ত কর্মকর্তা

সংবাদদাতা ॥

চাঁদপুর শহরের বিষ্ণুদী এলাকার বাসিন্দা তরুণ ব্যবসায়ী হান্নান মৃধা হত্যার ঘটনায় পুলিশ কতৃক আটক নিহত হান্নানের দু’ শ্যালককে আদালতে সোপর্দ করেছে মডেল থানা পুলিশ। অপরদিকে ঘটনা তদন্তে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা যশোরে অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

গত মাসে চাঁদপুর শহরের বিষ্ণুদী মৃধা বাড়ির বাসিন্দা তরুণ ব্যবসায়ী হান্নান মৃধা নিখোঁজের পর গত ঘটনায় গত ১৩ মার্চ নিহত হান্নান মৃধার লাশ যশোরের বেনাপোল এলাকায় পাওয়া যায়। এ ঘটনার খবর শুনে হান্নান মৃধার পরিবারের পক্ষে বড় বোন আমেনা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে। যার নং- ৪৪। তাং- ১৪/৩/২০২২ইং। এদিকে মামলায় নিহত হান্নান মৃধার পরিবার শ্বশুর পক্ষ কে দায়ী করে বিচারের দাবি জানিয়ে শহরে লাশ নিয়ে খবর শুনে নিহত হান্নানের বড় বোন – আমেনা বেগম বাদী হয়ে গত ১৪ মার্চ অঞাতনামা আসামী করে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। যার নং- ৪৪।

অপরদিকে নিহতের ঘটনায় মামলায় কোনো এজাহার নামীয় আসামী করা না হলেও নিহত হান্নানের পরিবারের ইঙ্গিত রয়েছে তাঁর শ্বশুর পক্ষের দিকে। এমনকি নিহত হান্নানের লাশ চাঁদপুরে এসে পৌঁছলে এ ঘটনায় শ্বশুর পক্ষ কে দায়ী করে গ্রেফতারের দাবি ও দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী চাঁদপুর শহরে মিছিল করে। এর পরপরই ঘটনার সন্দেহ ভাজন আসামী হিসেবে পুলিশ হান্নানের দু’শ্যালক কে আটক করে। এদিকে আটক দু’জনকে আজ ১৬ মার্চ ঘটনায় সম্পৃক্ততার সন্দেহ ভাজন আসামী হিসেবে আটক দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করে। আদালত আটক দু’জনকে জেল হাজতে প্রেরন করেন।

এদিকে মামলা দায়েরের পর পরই মামলার তদন্তের দায়িত্বে দেওয়া হয় মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সুজন বড়ুয়ার কে। তিনি দায়িত্ব পাওয়ার পর গত ১৫ মার্চ দুপুরে ঘটনা উদঘাটনে নিহত হান্নান মৃধা নিখোঁজ হওয়ার পর যশোর বেনাপোল পৌঁছার পূর্বে যে সকল স্হানে অবস্থান করছেন সেখানে তদন্তে গেছেন।

এ বিষয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রশীদের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আটক দু’ জনককে আমরা সন্দেহ ভাজন আসামী হিসেবে আটক দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করেছি। তাছাড়া এই ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) সুজন বড়ুয়া ঘটনা উদঘাটনে ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। এ অবস্থায় কোনো মন্তব্য করা যাবে না। আমরা চেষ্টা করছি যত দ্রুত সম্ভব ঘটনা উদঘাটন করে দোষীদের আইনের আওতায় আনবো।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.