৮ ডিসেম্বর চাঁদপুর আউটার স্টেডিয়ামে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা শুরু

স্টাফ রিপোর্টার ॥

৮ ডিসেম্বর থেকে চাঁদপুর শহরের আউটার স্টেডিয়ামে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা-২০২১ শুরু হতে যাচ্ছে। এ বছর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা ৩০ বছরে (৩ দশক) পা রাখতে যাচ্ছে। ১৯৯২ সালে শুরু হওয়া মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা সর্বশেষ অনুষ্ঠিত হয়েছিলো ২০১৯ সালে। এরপর থেকে শুরু হয় বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনা।

যার কারনে ২০২০ সালে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার সকল প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও করোনাকালীন সরকারের বিধিনিষেধ থাকার কারনে অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে করোনার পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে সীমিত পরিসরে ১০ দিনব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার ব্যবস্থাপনায় বিজয় উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

এ বছর করোনার পাদুর্ভাব অনেকটাই কমে যাওয়ায় জীবনযাত্রা সচলের পাশাপাশি দেশব্যাপী সাংস্কৃতিক কর্মকা- শুরু হয়। এমনকি দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর সীমিত পরিসরে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কার্যক্রম চালু হয়। যা এখনো অব্যাহত আছে।

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা মূলতঃ চাঁদপুরবাসীর সার্বজনিন বিজয় উৎসব। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের স্মৃতিবহুল চাঁদপুর হাসান আলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ১৯৯২ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছিলো। কিন্তু হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠকে ঘিরে প্রতিবছর অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুর শহর অনেকটা যানজটের নাকালে পড়তে হয়। সে জন্য ২০১৯ সালে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা কর্তৃপক্ষকে চাঁদপুর-৩ আসনের মাননীয় সাংসদ ও শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি যানজট এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম চলমান রাখার লক্ষে তিনি নিজেই আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দিয়েছিলেন, এ বছরই এ ভেন্যুতে সর্বশেষ মেলার আয়োজন। ওই সময় তিনি চাঁদপুর শহরের আউটার স্টেডিয়ামে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার আয়োজনের জন্য বিজয় মেলা কমিটিকে বলে থাকেন। সে লক্ষে এ বছর আউটার স্টেডিয়ামে ৩০তম মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা আয়োজনের প্রস্তুতি চলছে।
মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার আজ ১৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে আউটার স্টেডিয়ামে কাজ শুরু হবে। যা শেষ হবে আগামী ৬ ডিসেম্বর। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে ৮ ডিসেম্বর চাঁদপুর হানাদার মুক্তদিবসে। ওইদিন আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন চাঁদপুর-৩ আসনের সাংসদ ও শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি।

ইতোমধ্যে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী (মুজিবর্ষ) উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলাকে ঘিরে চাঁদপুরের সাংস্কৃতিক অঙ্গণ ও এখানকার মুক্তিযোদ্ধা সংসদে মুক্তিযোদ্ধারা ব্যাপক প্রস্তুতি নিতে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, চাঁদপুর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার স্টিয়ারিং কমিটির সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ ওয়াদুদের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ সরকারের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় লিখিতভাবে অনুমোদনের জন্য চাঁদপুরের জেলা প্রশাসককে পত্র দিয়েছেন। ওইপত্রের আলোকে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অঞ্জনা খান মজলিশ গতকাল ১৭ নভেম্বর লিখিতভাবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষ উদ্যাপনের লক্ষে চাঁদপুর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার প্রস্তুতি নেয়ার জন্য অনুমোদন দিয়েছে। শুধু তাই নয়, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক পদাধিকার বলে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি। সে কারনে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা আয়োজনের জন্য আউটার স্টেডিয়াম ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করেন।

শেয়ার করুন: